ঢাকা, ৩১ অক্টোবর শনিবার, ২০২০ || ১৫ কার্তিক ১৪২৭

"শক্তিশালী সিটিকে হারিয়ে সেমিতে লিওঁ""

ক্যাটাগরি : খেলা প্রকাশিত: ১৮১১ঘণ্টা পূর্বে   ৪৮


"শক্তিশালী সিটিকে হারিয়ে সেমিতে লিওঁ""

 


ক্রীড়া প্রতিবেদক: চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ কোয়ার্টার-ফাইনালে পর্তুগালের লিবসনে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে ৩-১ গোলে জিতেছে ওলিম্পিক লিওঁ। ম্যাক্সওয়েল কহনের গোলে পিছিয়ে পড়া সিটি সমতা টানে কেভিন ডি ব্রুইনের লক্ষ্যভেদে। শেষ দিকে জোড়া গোলে ব্যবধান গড়ে দেন দেম্বেলে।

ম্যাচের ২৪তম মিনিটে প্রথম ভালো সুযোগেই গোল আদায় করে নেয় লিওঁ। মাঝমাঠে বল পেয়ে দারুণ ক্ষিপ্রতায় এগিয়ে যান কার্ল তোকো একাম্বি। তাকে রুখতে অনেকখানি এগিয়ে আসেন গোলরক্ষক এডারসন। ডিফেন্ডার এরিক গার্সিয়ার ট্যাকলে শট নিতে পারেননি একাম্বি, আলগা বল পেয়ে ২০ গজ দূর থেকে কাছের পোস্ট ঘেঁষে ঠিকানা খুঁজে নেন দলটির ফরোয়ার্ড কহনে। প্রথমার্ধের শেষ ১০ মিনিটে প্রতিপক্ষের সীমানায় প্রচণ্ড চাপ বাড়ায় সিটি। কিন্তু গোলের দেখা পায়নি তারা। 

দ্বিতীয়ার্ধেও অধিকাংশ সময় বল দখলে রেখে চাপ ধরে রাখে সিটি। ৬৯তম মিনিটে দেখা মেলে সাফল্যের।  বাইলাইনে একজনকে কাটিয়ে স্টার্লিং বল বাড়ান পেনাল্টি স্পটের কাছে আর প্লেসিং শটে সমতা টানেন ডি ব্রুইনা। ম্যাচের‌ ৭৯তম মিনিটে খেলার ধারার বিপরীতে আবারও এগিয়ে যায় লিওঁ।
মাঝমাঠে সতীর্থের থ্রু বল পেয়ে একরকম বিনা বাধায় আক্রমণে উঠে বেশ দূর থেকে নিচু শট নেন দেম্বেলে। অনেকটা এগিয়ে আসা এডারসনের পায়ে লেগে বল ঠিকানা খুঁজে নেয়।
৮৭তম মিনিটে এডারসনের ভুলের সুযোগে ব্যবধান বাড়িয়ে জয় প্রায় নিশ্চিত করে ফেলে লিওঁ। সেই সঙ্গে আশা বলতে গেলে শেষ হয়ে যায় সিটির। মাঝমাঠে তাদের থেকে বল কেড়ে নিয়ে আক্রমণে ওঠে লিওঁ। ডি-বক্সের বাইরে থেকে হোসাম আউয়ারের শট নিয়ন্ত্রণে নেওয়া উচিত ছিল এডারসন; কিন্তু সহজ বল হাতে জমাতে পারেননি ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক। আলগা বল গোলমুখে পেয়ে অনায়াসে জালে পাঠান ৭৫তম মিনিটে বদলি নামা ফরাসি ফরোয়ার্ড দেম্বেলে।

ইংলিশ ফুটবলে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করা সিটি এখনও ইউরোপে পায়ের নিচে মাটি খুঁজছে। সম্ভাবনা জাগিয়েও রক্ষণ আর কিপারের ব্যর্থতায় আরও একবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে শূন্য হাতে ফিরল তারা। 
অপরদিকে শেষ ষোলোয় জুভেন্টাসকে বিদায় করা ওলিম্পিক লিওঁ আগামী বুধবার ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে বায়ার্ন মিউনিখের মুখোমুখি হবে। বার্সেলোনাকে ৮-২ গোলে গুঁড়িয়ে সেমি-ফাইনালে উঠেছে জার্মান চ্যাম্পিয়নরা।


আমি/সকডক

শেয়ার করুনঃ
আপনার মতামত লিখুন: