ঢাকা, ২৭ অক্টোবর মঙ্গলবার, ২০২০ || ১১ কার্তিক ১৪২৭

ইয়াবা, ফেনসিডিল ও গাঁজা সহ কথিত পেশাজীবিলীগ নেতা গ্রেফতার

ক্যাটাগরি : বাংলাদেশ প্রকাশিত: ৭৬১ঘণ্টা পূর্বে   ১৩৫


ইয়াবা, ফেনসিডিল ও গাঁজা সহ  কথিত পেশাজীবিলীগ নেতা গ্রেফতার

 

সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি:

 সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটায় মাদকদ্রব্য সহ  আব্দুর রহমান(৫৯) নামে এক কথিত পেশাজীবিলীগ নেতাকে  গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  সে থানার তৈলকুপি গ্রামের মৃত শেখ ফজর আলীর ছেলে।
পাটকেলঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ(তদন্ত) জেল্লাল হোসেন জানান, গতকাল ডিবি পুলিশ ও থানা পুলিশের  যৌথ অভিযানে জালিয়াতি মামলায়  তাকে গ্রেফতার  পর রাতে তার বাড়ি তল্লাসী করে ৫ বোতল ফেনসিডিল, ১৫পিচ ইয়াবা ও ৩০০গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করা হয়।
তিনি আরও জানান, জিজ্ঞাসবাদে সে সরকার দলীয় পরিচয়  ব্যাবহার করে জেলার বিভিন্ন স্থানে জালিয়াতি, প্রতারনা সহ মাদক ব্যবসা করে আসছিল বলে স্বীকার করেছে।  তার বিরুদ্ধে থানায়  মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে আরও একটি মামলা(নং- ৭, তাং- ২৫/১০/২০২০) রুজু করা হয়েছে। শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) তাকে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

পাটকেলঘাটার স্থানীয় এক বাসিন্দা ও জেলা যুবদল নেতা(নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) জানান, রহমান ২০০২ সালে বিএনপি’র সক্রিয় কর্মী থাকাকালিন কুমিরা গ্রামের জামাল সরদারের ছেলে  আনিছুর রহমানের বাসায় গরু চুরি করে আটক হন। অত:পর এক প্রভাবশালী নেতার সুপারিশে কিছু টাকা জরিমানা দিয়ে সে যাত্রায় পার পেয়ে যায়।
অত:পর ২০০৯ সালে আওয়মীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০১০সালে আওয়ামীলীগের লেবেল লাগিয়ে দাপিয়ে বেড়ান। ২০১৩-১৪ সালের দিকে তৎকালীন পাটকেলঘাটা থানার ওসি মামুনুর রহমানের সাথে মিশে তার নাম পরিচয় ব্যবহার করে  নিরিহ লোকজনকে নাশকতা ও ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা  চাঁদাবাজি করে বেড়াত।
অত:পর ওসি মামুনুর রশিদ ঘটনাটি বুঝতে পেরে তাকে ডিবি পুলিশের সহযোগিতায় প্রতারনা মামলায়  গ্রেফতার করে জেলে পাঠিয়ে দেন। জেল থেকে বেরিয়ে এসে সে  নিজেকে কখনও মানবাধিকার কর্মী, কখনবা কথিত সাংবাদিক, সর্বশেষ আওয়ামী পেশাজীবিলীগের কেন্দ্রীয় নেতা পরিচয়ে দাপিয়ে অপকর্ম করে  বেড়াত। তার দাপট এতটা ছিল যে ভয়ে কেউ মুখ খোলার সাহস পেতনা।
এক সময় যে কুঁড়েঘরে থাকত আর সে এখন লাখপতি। গত ২ মাস আগে আব্দুর রহমান ও তার এক সহযোগী ফরিদকে পল্লী বিদ্যুৎতের সদর দপ্তরের সামনের টল দোকান থেকে  গাঁজা সহ পুলিশের কাছে আটক হয়ে জেল খাটেন। কিছুদিন আগে জামিনে মুক্তি পেয়ে আবারও বেপরোয়া হয়ে ওঠে। কথায় আছে “পাপ ছাড়েনা বাপকে” আজ তার গ্রেফতার হওয়ার কথা শুনে পাটকেলঘাটাবাসী যেন স্বস্তির নি:শ্বাস ফেললো। আমরা তার কঠোর শাস্তির দাবী জানাই। যেন ভবিষৎতে এ ধরনের অপরাধ করে পার না পায়।

শেয়ার করুনঃ
আপনার মতামত লিখুন:
আরও সংবাদ পড়ুন